মঙ্গলবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৮

শনিবার, ৭ এপ্রিল ২০১৮

পাকা চুল নিয়ে দুশ্চিন্তার দিন শেষ!

এবিসিরিপোর্ট ডেস্ক

মাথার চুল পাকতে শুরু করলে দুশ্চিন্তায় ভোগেন না এমন মানুষ কমই আছে। কারো চুল অনেক দেরিতে পাকলেও তরুণ বয়সেই অনেকের চুলের রঙ বদলাতে শুরু করে। এই পরিস্থিতিতে তারা কিছুটা মানসিক অস্বস্তিতে ভুগতে থাকেন।

কিন্তু পাকা চুল নিয়ে দুশ্চিন্তার দিন বোধহয় শেষ হতে চলল। যুক্তরাষ্টের গেটঅ্যাওয়েগ্রে নামের একটি প্রতিষ্ঠান চুল পাকা ঠেকাতে পারে বলে দাবি করেছে। এমনকি যাদের চুল ইতিমধ্যে পেকে গেছে তাদের চুলের আগের অবস্থাও নাকি ফিরিয়ে আনতে পারবে। মনে হতে পারে হয়তো কোনো উন্নতমানের কলপ কিংবা হেয়ারডাই লাগাতে হবে চুলে যাতে স্থায়ীভাবে আগের রং ফিরে আসে। কিন্তু কোম্পানিটি বলেছে, তাদের চিকিত্সায় চুলে কিছুই লাগানোর দরকার পড়বে না। কারণ হেয়ার ডাইতে বিষাক্ত রাসায়নিক থাকে যা চুলের গোড়া দিয়ে মস্তিষ্কের ভেতর ঢুকে গিয়ে ক্ষতি করতে পারে। গেটঅ্যাওয়েগ্রে কোম্পানির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তাদের তৈরীকৃত মাল্টিভিটামিন চুল সংক্রান্ত সব সমস্যা দূর করে দেবে।

প্রতিষ্ঠানটি বলেছে, পাকা চুলের পেছনে না ছুটে তাদের গবেষক দল চুল পাকার কারণ খুঁজে বের করেছে। ঠিক যে যে ভিটামিনের অভাবে চুলের এই দশা হয় ঠিক সেই সেই ভিটামিন নির্দিষ্ট মাত্রায় ব্যবহার করে তারা মাল্টিভিটামিন তৈরী করেছেন। ফলে পুষ্টির অভাবে সময়ে চুল পেকে যাবার দুশ্চিন্তা দূর হবে। তারা বলেছে, মানুষের বয়স বৃদ্ধির সাথে সাথে শরীরে ক্যাটালেস এনজাইমের স্তর পড়তে থাকে। তখন চুল পাকা শুরু হয়। এই এনজাইম কম হলে চুলের স্বাভাবিক রঙ ধরে রাখার কাজ বাধাপ্রাপ্ত হয়।

কিন্তু গেটঅ্যাওয়েগ্রে তৈরী মাল্টিভিটামিন সেই এনজাইমের ঘাটতি পূরণ করে আগের অবস্থায় নিয়ে আসে। যে কারণে চুল যদি পেকেও গিয়ে থাকে তবে ধীরে ধীরে তা পূর্বের অবস্থায় ফিরে যায়। যুক্তরাজ্যের ইউনিভার্সিটি অব ব্রাডফোর্ডের ক্লিনিক্যাল অ্যান্ড এক্সপেরিমেন্টাল ডার্মাটোলজির অধ্যাপক ক্যারিন শ্যালরিউটার এ ব্যাপারে বলেন, এই এনজাইমের অভাব হলে চুলের রঙ পরিবর্তন হতে শুরু করে। গেটঅ্যাওয়েগ্রে’র মাল্টিভিটামিন যদি সত্যি সত্যি সেই ঘাটতি পূরণ করতে পারে সেটা সুখবর বটে।

চীনের ই চুঙ হুয়াং নামে এক ব্যক্তি বলেন, অসময়ে চুল পাকার কারণে মনটা বেশ খারাপ থাকতো। কিন্তু এই মাল্টিভিটামিন সেবনের পর যখন দেখলাম গোড়া থেকেই আমার চুলের কালো রং ফিরে আসছে তখন আমার আনন্দের সীমা ছিল না। সূত্র: টোটাল লাইফ