শনিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৭

বুধবার, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭

অবশেষে যৌথ প্রযোজনা ছবির নীতিমালার খসড়া

এবিসিরিপোর্ট ডেস্ক

যৌথ প্রযোজনার নীতিমালা নিয়ে অনেকদিন ধরেই চলছে বিভিন্ন সমালোচনা। আর এই সমালোচনার মূল কারণ সংশ্লিষ্টদের দ্বিমত। তাই সুষ্ঠু একটি নীতিমালা নিয়ে আলোচনা চলছিল অনেকদিন ধরেই। শেষ পর্যন্ত একটি নীতিমালা নির্ধারণ করা হলো। নীতিমালায়  বলা হয়েছে যৌথ প্রযোজনার চলচ্চিত্রে শিল্পী-কলাকুশলীর সমানুপাত বাধ্যতামূলক করে নতুন নীতিমালার খসড়া করেছে সরকার। 

তথ্য মন্ত্রণালয় এ খসড়াটি করেছে। প্রচার সামগ্রীতে সংশ্লিষ্ট সব দেশের শিল্পী ও কলাকুশলীদের নাম সমানভাবে ও গুরুত্বসহকারে উল্লেখ থাকতে হবে। সংশ্লিষ্ট সব দেশের শিল্পীর ছবি সমানভাবে প্রদর্শন করার কথাও বলা হয়েছে খসড়া নীতিমালায়। শিল্পী ও কলাকুশলীর অনুপাতে বৈষম্য, প্রচারণায় বাংলাদেশের শিল্পী ও কলাকুশলীদের অবজ্ঞাসহ নানা কারণে বিগত সময়ে ভারত-বাংলাদেশের যৌথ প্রযোজনার চলচ্চিত্র নিয়ে বিতর্ক ও সমালোচনা সৃষ্টি হয়। 

সর্বশেষ গত ৯ জুলাই ‘চলচ্চিত্র পরিবার’ প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকে দেশের চলচ্চিত্রের স্বার্থে যৌথ প্রযোজনায় চলচ্চিত্র নির্মাণ নীতিমালা দ্রুত যুগোপযোগী ও পূর্ণাঙ্গ করে নতুন নীতিমালা তৈরির সিদ্ধান্ত নেয় তথ্য মন্ত্রণালয়। নতুন নীতিমালা না হওয়া পর্যন্ত যৌথ প্রযোজনায় চলচ্চিত্র নির্মাণ কার্যক্রম স্থগিত রাখারও সিদ্ধান্ত হয়। 

সেই থেকে যৌথ প্রযোজনায় চলচ্চিত্র নির্মাণের সব ধরনের কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে, ২০১২ সালের নীতিমালাকে ভিত্তি ধরে নতুন নীতিমালাটি করা হয়েছে।