বৃহস্পতিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭

সংগঠন রিপোর্ট

বেসিক ব্যাংকে প্রয়োজন ৫৬ সহকারী ব্যবস্থাপক, আবেদন প্রক্রিয়া, চলবে ১৭ আগস্ট,

বেসিক ব্যাংকে প্রয়োজন ৫৬ সহকারী ব্যবস্থাপক, আবেদন প্রক্রিয়া, চলবে ১৭ আগস্ট,

বেসিক ব্যাংক লি. এর জন্য ৫৬ জন সহকারী ব্যবস্থাপক নিয়োগ দেবে বলে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে ব্যাংকার্স সিলেকশন কমিটি সচিবালয়। আবেদন করতে হবে অনলাইনের মাধ্যমে। প্রকৃত বাংলাদেশিরাই আবেদন করতে পারবেন। ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে আবেদন প্রক্রিয়া, চলবে আগামী ১৭ আগস্ট, ২০১৭ পর্যন্ত।

আবেদনের নিয়ম

উল্লিখিত পদে শুধুমাত্র বাংলাদেশ ব্যাংকের ওয়েবসাইট erecruitment.bb.org.bd এর মাধ্যমেই আবেদন করতে হবে। অনলাইনে আবেদন করার পর সিভি আইডেন্টিফিকেশন নম্বর ও পাসওয়ার্ড প্রার্থীদের সংগ্রহ করতে হবে। পরীক্ষার প্রবেশপত্র প্রার্থীকেই ডাউনলোড করে নিতে হবে। আবেদনের সময় প্রাথমিকভাবে প্রার্থীদের কোনো কগজপত্র প্রেরণ করতে হবে না। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পর প্রার্থীদের যাবতীয় কাগজপত্র প্রয়োজন হবে। এছাড়া আরও তথ্য পাওয়া যাবে বাংলাদেশ ব্যাংকের নিয়োগ সংক্রান্ত ওয়েবসাইটে।

আবেদনের যোগ্যতা

উল্লিখিত পদে আবেদন করতে হলে প্রার্থীর শিক্ষাগত যোগ্যতা হিসেবে প্রয়োজন হবে যেকোনো বিষয়ে স্নাতকোত্তর বা চার বছর মেয়াদি স্নাতক ডিগ্রি এবং এসএসসি ও তদূর্ধ্ব পর্যায়ের পরীক্ষায় সনাতন পদ্ধতিতে প্রকাশিত ফলের ক্ষেত্রে ন্যূনতম দুইটি প্রথম বিভাগ থাকতে হবে। কোনো অবস্থাতেই তৃতীয় বিভাগে উত্তীর্ণরা এই পদের জন্য আবেদন করতে পারবে না। সরকারি সব প্রতিষ্ঠানে বিশেষ করে বাংলাদেশ ব্যাংকের মাধ্যমে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তির বিপরীতে যেকোনো পদে আবেদনের জন্য গ্রেডিং পয়েন্টে প্রকাশিত ফলের ক্ষেত্রে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৩.০০ বা তদূর্ধকে প্রথম বিভাগ, জিপিএ ২.০০ থেকে ৩.০০-এর চেয়ে কমকে দ্বিতীয় এবং জিপিএ ১.০০ থেকে ২.০০-এর কম হলে তৃতীয় বিভাগ হিসেবে ধরা হবে। বিশ্ববিদ্যালয় হতে প্রাপ্ত পয়েন্টের ক্ষেত্রে ৪ পয়েন্ট স্কেলে সিজিপিএ ৩.০০ বা তারও বেশি হলে প্রথম শ্রেণি, ২.২৫ থেকে ৩.০০ পর্যন্ত দ্বিতীয় শ্রেণি বা বিভাগ, ১.৬৫ থেকে ২.২৫ এর মধ্যে হলে তৃতীয় বিভাগ হিসেবে গণ্য করা হবে। এছাড়াও পয়েন্ট স্কেল ৫ হলে ৩.৭৫ বা এর ওপরে প্রথম বিভাগ, ২.৮১৩ থেকে ৩.৭৫-এর কম দ্বিতীয় বিভাগ এবং ২.০৬৩ বা ২.৮১৩-এর কম তৃতীয় বিভাগ হিসেবে গণ্য করা হবে। এবারের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে প্রার্থীর অতিরিক্ত যোগ্যতা হিসেবে কম্পিউটার পরিচালনায় পারদর্শী হতে হবে বলে শর্ত জুড়ে দিয়েছে।

বয়স সীমা

উল্লিখিত পদে আবেদন করতে হলে ইচ্ছুক প্রার্থীদের বয়স সীমা হতে হবে ১ জুলাই ২০১৭ তারিখে সর্বোচ্চ ৩০ বছর তবে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে বয়সসীমা ৩২ বছর। বয়সের ক্ষেত্রে এফিডেভিট গ্রহণযোগ্য হবে না।

 বেতন সীমা

একজন সহকারী ব্যবস্থাপক বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী সর্বসাকূল্যে বেতন পাবেন ৫০ হাজার থেকে ৯৯ হাজার ৯’শ চল্লিশ টাকা। এছাড়াও বাংলাদেশ ব্যাংকের বিধি মোতাবেক বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা।

ব্যাংকিং সেক্টর এগিয়ে এলে প্রচুর তরুণ উদ্যোক্তা তৈরি হবে: ড. আতিউর রহমান

ব্যাংকিং সেক্টর এগিয়ে এলে প্রচুর তরুণ উদ্যোক্তা তৈরি হবে: ড. আতিউর রহমান

একজন দরিদ্র কৃষকের সন্তান রাখাল বালক থেকে দেশের সর্বোচ্চ অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহীর পদ অলংকৃত করা তো রূপকথাকেও হার মানায়! তিনি বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. আতিউর রহমান। সততা, মেধা, নিষ্ঠা ও পরিশ্রম দিয়ে গড়া তার জীবন বর্তমান তারুণ্যকে বরাবরই অনুপ্রাণিত করে। ড. আতিউর রহমান তরুণদের নিয়ে তার নানা কার্যক্রম ও ভাবনার কথা জানিয়েছেন আমাদের এবারের তরুণকণ্ঠে। সাক্ষাত্কারটি নিয়েছেন রিয়াদ খন্দকার

আমি গ্রামের মানুষ, গ্রামে জন্মগ্রহণ করেছি। কিন্তু আমার পরম সৌভাগ্য যে, তখনকার দিনে স্কুলে হয়তো ভালো অবকাঠামো ছিল না, এখনকার মতো সুন্দর ভবন ছিল না, কিন্তু ভালো শিক্ষক ছিলেন। সে কারণেই আমরা গ্রাম থেকে লেখাপড়া করেও ভালো ইংরেজি শিখতে পেরেছি, অঙ্ক শিখেছি এবং জাতীয় প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার মাধ্যমে ক্যাডেট কলেজে ভর্তি হতে পেরেছিলাম। সেখানে দেশের বিভিন্ন পর্যায় থেকে আসা বাছাই করা মেধাবীদের সঙ্গে যুক্ত হতে পেরেছিলাম। এই মেধাবীদের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে নেতৃত্ব দেওয়ার জায়গা অর্জন করাটাও বিরাট চ্যালেঞ্জ ছিল। মানুষ তখনই গড়ে ওঠে, যখন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়। আমার সেই চ্যালেঞ্জটা ছোটবেলা থেকেই ছিল। আমাদের সময়ে লেখাপড়া নিয়ে কোনো কম্প্রোমাইজ ছিল না। আমরা যখন এসএসসি বা এইচএসসি পরীক্ষা দিয়েছি, তখন ফলাফলে সেরা দশজনের নাম আসত। দু’বারই আমার নাম ছিল। আমি বলব যে, ভালো করার অনুপ্রেরণা সমাজই দিত, মেধাবীদের মূল্যায়ন করত। ইন্টারমিডিয়েট পড়া শেষ করে বের হওয়ার পর আরও একটি চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হলাম। আমার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার কিছু পরেই মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলো। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর আমরা একটা অভূতপূর্ব সময় পেলাম। শিল্পসাহিত্য চর্চা শুরু হলো পুরোদমে। আমার মনে আছে, ১৩৮০ বঙ্গাব্দে ডাকসুর সাহিত্য প্রতিযোগিতায় আমি চ্যাম্পিয়ন হয়ে গোল্ড মেডেল পেয়েছিলাম। আমি গ্রাম থেকে উঠে আসা ছেলে, এই অর্জন আমার জন্য অনুপ্রেরণা ছিল। তখন একটা চমত্কার সময় চলছিল। মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম তখন ভিপি, মাহবুব জামান সাধারণ সম্পাদক, ম হামিদ ছিলেন সাংস্কৃতিক সম্পাদক। বিশ্ববিদ্যালয়ে তখন লেখাপড়ার ফাঁকে ফাঁকে বৈচিত্রপূর্ণ কর্মকাণ্ডে আমরা জড়িত থাকতাম। তখনকার তারুণ্য ছিল চ্যালেঞ্জিং।

নিজেকে হিটলার দাবি ১২৮ বছরের বৃদ্ধের!

নিজেকে হিটলার দাবি ১২৮ বছরের বৃদ্ধের!

ফের শিরোনামে উঠে এল অ্যাডলফ হিটলারের নাম। সৌজন্যে আর্জেন্টিনার এক বৃদ্ধ! সম্প্রতি হারমান গুটেনবার্গ নামে ওই বৃদ্ধ নিজেকে হিটলার বলে দাবি করেছেন। শুধু তাই নয়, তাঁর বয়সও নাকি ১২৮! এই খবর আর্জেন্টিনা এবং লাতিন আমেরিকার সংবাদমাধ্যমের একাংশে ফলাও করে ছাপা হয়েছে। তবে, খবরটিতে বিশ্বাসযোগ্যতার অভাব থাকায় বিশ্বের নামী সংবাদমাধ্যমগুলি এ নিয়ে তেমন একটা উৎসাহী হয়নি। এমনকী ওই বৃদ্ধের স্ত্রীও তাঁর দাবি মানতে নারাজ। তিনি জানিয়েছেন, তাঁর স্বামী লঝাইমার’স-এ আক্রান্ত হয়েই এ সব বলছেন। সম্প্রতি গুটেনবার্গ দাবি করেন, তিনি-ই নাকি অ্যাডলফ হিটলার। কিন্তু, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে নাৎসি বাহিনীর পরাজয়ের পর ১৯৪৫ সালের ৩০ এপ্রিল হিটলার তো আত্মহত্যা করেছিলেন! ইতিহাসবিদেরা তো তেমনটাই বলেন। তা হলে তিনি কী ভাবে আর্জেন্টিনায় এলেন?

বিবিসির প্রতিবেদন: আরবদের হটিয়ে ইসরায়েল রাষ্ট্রের যেভাবে জন্ম হয়েছিল

বিবিসির প্রতিবেদন: আরবদের হটিয়ে ইসরায়েল রাষ্ট্রের যেভাবে জন্ম হয়েছিল

ফিলিস্তিনের গাজা থেকে দুই মাইল উত্তরে কিবুটস এলাকা। এখানে ১৯৩০'র দশকে পোল্যান্ড থেকে আসা ইহুদীরা কৃষি খামার গড়ে তুলেছিল। পাশেই ছিল ফিলিস্তিনী আরবদের বসবাস। সেখানে আরবদের কৃষি খামার ছিল। তারা কয়েক শতাব্দী ধরে সেখানে বসবাস করছিল। সে সময় মুসলমান এবং ইহুদীদের মধ্যে সম্পর্ক মোটামুটি বন্ধুত্বপূর্ণ ছিল। কিন্তু ১৯৩০'র দশকে ফিলিস্তিনীরা বুঝতে পারলো যে তারা ধীরে-ধীরে জমি হারাচ্ছে। ইহুদিরা দলে-দলে সেখানে আসে এবং জমি ক্রয় করতে থাকে। ইসরায়েল রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠার সময় প্রায় সাত লাখের মতো ফিলিস্তিনী বাস্তু-চ্যুত হয়েছে। তারা ভেবেছিল দ্রুত সমস্যার সমাধান হলে তারা বাড়ি ফিরে আসতে পারবে। কিন্তু ইসরায়েল তাদের আর কখনোই বাড়িতে ফিরতে দেয়নি।

সাম্প্রতিক সময়ে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস ক্লাব নিয়ে বিভ্রান্তিমূলক তথ্য প্রকাশ প্রসঙ্গে

সাম্প্রতিক সময়ে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস ক্লাব নিয়ে বিভ্রান্তিমূলক তথ্য প্রকাশ প্রসঙ্গে

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী সাংবাদিকদের সংগঠন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস ক্লাব প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই সৎ ও বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে অত্যন্ত উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং কিছু নাম সর্বস্ব অনলাইন সংবাদমাধ্যমে প্রেস ক্লাব নিয়ে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিমূলক তথ্য ও সংবাদ প্রকাশ করা হচ্ছে যা সংগঠনটির ভাবমূর্তি ক্ষুণœ করেছে। এছাড়া এটিও আমাদের গোচরে এসেছে যে সংবাদে নাম উল্লেখ করা হয়েছে এমন ব্যক্তিদের বক্তব্য না নিয়েই মনগড়া বক্তব্য সংযোজন করে দেওয়া হচ্ছে। যে এছাড়া প্রেস ক্লাবের গঠনতন্ত্রে উল্লেখিত নির্বাচনী বিধি মেনে ২০১৬-১৭ সালের কার্যনির্বাহী পরিষদের ১১ সদস্য বিশিষ্ট যে কমিটি গঠিত হয়েছে তা নিয়েও উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে।জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী সাংবাদিকদের সংগঠন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস ক্লাব প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই সৎ ও বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে অত্যন্ত উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং কিছু নাম সর্বস্ব অনলাইন সংবাদমাধ্যমে প্রেস ক্লাব নিয়ে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিমূলক তথ্য ও সংবাদ প্রকাশ করা হচ্ছে যা সংগঠনটির ভাবমূর্তি ক্ষুণœ করেছে। এছাড়া এটিও আমাদের গোচরে এসেছে যে সংবাদে নাম উল্লেখ করা হয়েছে এমন ব্যক্তিদের বক্তব্য না নিয়েই মনগড়া বক্তব্য সংযোজন করে দেওয়া হচ্ছে। যে এছাড়া প্রেস ক্লাবের গঠনতন্ত্রে উল্লেখিত নির্বাচনী বিধি মেনে ২০১৬-১৭ সালের কার্যনির্বাহী পরিষদের ১১ সদস্য বিশিষ্ট যে কমিটি গঠিত হয়েছে তা নিয়েও উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে।

অলিম্পিকের উদ্বোধনীতে বিশেষ অতিথি ড. ইউনূস

অলিম্পিকের উদ্বোধনীতে বিশেষ অতিথি ড. ইউনূস

বিশেষ অতিথি হিসেবে রিও অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান উপভোগ করলেন নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূস। শুক্রবার সন্ধ্যায় ব্রাজিলের রিও ডি জেনিরোর মারাকানা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত রিও অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তাকে আমন্ত্রণ জানায় আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি। তিনি রিও ২০১৬ অলিম্পিকের চার ঘন্টাব্যাপী এই বর্ণাঢ্য উদ্বোধনী অনুষ্ঠান উপভোগ করেন। বাংলাদেশ অলিম্পিক দলের মার্চ পাস্ট সহ এই অনুষ্ঠান বিশ্বের কোটি কোটি মানুষ সরাসরি পর্যবেক্ষণ করে। এ সময়ে ভিআইপি গ্যালারিতে প্রফেসর ইউনূসের সঙ্গে ছিলেন বিশ্বখ্যাত ক্রিকেটার শচীন টেন্ডুলকার, ইউনূসের বন্ধু গ্রিসের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী জর্জ পাপান্দ্রু ও কানাডার প্রাক্তন গভর্নর জেনারেল মিশেল জিন প্রমুখ।

সিদ্ধিরগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধা হামিদ মোল্লার স্মরণে সভা অনুষ্ঠিত

সিদ্ধিরগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধা হামিদ মোল্লার স্মরণে সভা অনুষ্ঠিত

সিদ্ধিরগঞ্জের গোদনাইলের ধনকুন্ডা জাগরনী সংসদের উদ্যোগে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শিল্পপতি আলহাজ আব্দুল হামিদ মোল্লার স্মরনে এক আলোচনা সভা, দোয়া ও মিলাদ-মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় জাগরনী সংসদ প্রাঙ্গনে সভাপতি এনামুল হক ভুঁইয়া বাদলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত স্মরন সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সমাজ সেবা অধিদপ্তরের নারায়ণগঞ্জ কার্যালয়ের উপ-পরিচালকবীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ মোখলেছুর রহমান। বিশেষ অতিথি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ৮ নংওয়ার্ড কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লা। স্মরনসভা ও মিলাদ মাহফিলে বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ শাহজাহান ভুঁইয়া জুলহাস, মোঃ কামাল হোসেন, মোঃ মজিবুর রহমান সাউদ, মোহর আলী, সুন্দর আলী, নুর হোসেন মোল্লা, মোঃ মহিউদ্দিন মোল্লা, মোঃ সিরাজুল হক ভুঁইয়া, জয়নাল আবেদীন মন্ডল, এস,এম বদিউল আলম, আব্দুল মতিন, আয়েত আলীসহ স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধারা। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন মোঃ দেলোয়ার হোসেন খোকন।

জন্মদিনে শুভেচ্ছায় সিক্ত ফজলে হাসান আবেদ

জন্মদিনে শুভেচ্ছায় সিক্ত ফজলে হাসান আবেদ

জন্মদিনে শুভানুধ্যায়ীদের শুভেচ্ছায় সিক্ত হলেন ব্র্যাকের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারপারসন বিশ্ববরেণ্য বাংলাদেশি সমাজকর্মী স্যার ফজলে হাসান আবেদ। এই মানুষটি তার বর্ণাঢ্য জীবনের ৮০ বছর পার করলেন গতকাল বুধবার। তার জন্মদিনে বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নেয় ব্র্যাক। কর্মব্যস্ততা আর শুভেচ্ছা গ্রহণের মধ্য দিয়েই দিনটি কেটে যায় তার। এ উপলক্ষে গতকাল সকালে মহাখালীর ব্র্যাক সেন্টারে ব্র্যাকের জন্মলগ্ন থেকে ৪৪ বছরের পথচলার বিভিন্ন পর্যায় একটি চতুর্মাত্রিক প্রদর্শনীর (ফোর ডি এক্সিবিশন) মাধ্যমে তুলে ধরা হয়। তুলে ধরা হয় দেশ-বিদেশে সংস্থাটির বিভিন্ন কর্মকাণ্ড ও সাফল্য।

লায়ন্স ক্লাবগুলো বিশ্বে মানবসেবাকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে সক্ষম হয়েছে'

লায়ন্স ক্লাবগুলো বিশ্বে মানবসেবাকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে সক্ষম হয়েছে'

পরিবেশ ও বন মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু বলেছেন, লায়ন্স ক্লাবগুলোর প্রায় শতবর্ষের মানবসেবা কার্যক্রম বৈশ্বিক কাঠামো অর্জন করেছে। এই সেবাকে তারা প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে পেরেছে। তারা নিজেরাই এখন একটি বৈশ্বিক প্রতিষ্ঠান। যার কারণে সুশৃঙ্খলভাবে বিশ্বব্যাপী এই সেবা কার্যক্রম সুচারুভাবে পরিচালিত হচ্ছে। কিন্তু বাংলাদেশসহ উন্নয়নশীল দেশগুলোতে রাষ্ট্রব্যবস্থায় প্রতিষ্ঠানগুলো এখনো সেভাবে গড়ে তোলা সম্ভব হয়নি। এর কারণ আমরা একটি আধা সামন্তবাদী সমাজে বসবাস করছি, সেখান থেকে আমাদের আধুনিক সমাজব্যবস্থার দিকে এগোতে হবে। গতকাল শুক্রবার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে লায়ন্স ক্লাবের (ডিস্ট্রিক্ট-৩১৫বি২) দুদিনব্যাপী ২৩তম সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

‘ব্রিটিশ বাংলাদেশি পাওয়ার অ্যান্ড ইন্সপিরেশন’ জরিপে বিশ্বের প্রভাবশালী ১০ বাংলাদেশি

‘ব্রিটিশ বাংলাদেশি পাওয়ার অ্যান্ড ইন্সপিরেশন’ জরিপে বিশ্বের প্রভাবশালী ১০ বাংলাদেশি

সফল মানুষেরা তাদের কর্মের প্রতিদান কখনোই খোঁজেন না। এখানেই হয়তো তাদের সাফল্যের মূলমন্ত্র নিহিত। ‘ব্রিটিশ বাংলাদেশি পাওয়ার অ্যান্ড ইন্সপিরেশন’ মূলত যুক্তরাজ্যের বাংলাদেশি কমিউনিটির একটি উদ্যোগ। বিশ্বজুড়ে বাংলার কৃতী সন্তানেরা নিজেদের দৃপ্ত পদচ্ছাপ রেখে এগিয়ে চলেছে দিগ্বিজয়ীর মতো। এই পদচারণা পরবর্তী প্রজন্মকে এগিয়ে দেবে হয়তো বহুদূর, আর সেই সঙ্গে বাংলাদেশের নামও উজ্জ্বল করবে বিশ্বের মানচিত্রে। এমনই সাফল্যমণ্ডিত মানুষদের নিয়ে ব্রিটিশ বাংলাদেশি পাওয়ার অ্যান্ড ইন্সপিরেশনের কর্মকাণ্ড পরিচালিত। ১০০ জন সবচেয়ে প্রভাবশালী বাংলাদেশির তালিকা তারা প্রথম প্রকাশ করে ২০১২ সালের জানুয়ারি মাসে। এই তালিকা প্রকাশের মাধ্যমে তারা বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে থাকা বাঙালিদের কঠোর পরিশ্রম ও উদ্যোগকে স্বাগত জানায় এবং উদযাপন করে। এই তালিকায় তারা স্থান দেয় সেইসব ব্যক্তি ও উদ্যোক্তাকে যারা নিজ নিজ ক্ষেত্রে সফল ও অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত রেখেছেন। যে ব্যক্তি ও উদ্যোক্তারা শুধু নিজ প্রয়োজনে নয়, বরং দেশের স্বার্থে নিজেদের কর্মজীবন পরিচালনা করেন; তাদেরকেই এই তালিকায় ঠাঁই দেওয়া হয়। কর্মের মধ্য দিয়ে তারা যেমন নিজেদের উন্নয়ন সাধন করেছেন, তেমনি দেশকেও তুলে ধরেছেন বিশ্ব দরবারে গৌরবের সঙ্গে। নিজ অবস্থান থেকে দেশের উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন এমন ব্যক্তিত্বও উপস্থিত আছেন এই তালিকায়। অনেকের মনেই প্রশ্ন জাগে, কেন এই তালিকা তৈরি করা। ব্রিটিশ বাংলাদেশি পাওয়ার অ্যান্ড ইন্সপিরেশন তালিকা তৈরিকারী কমিউনিটির উত্তর একটাই—অনুপ্রেরণা। তারা অনুপ্রেরণায় বিশ্বাসী এবং তাদের মতে, আজকের এই উদ্যোগী মানুষগুলোর গল্প থেকেই তৈরি হবে ভবিষ্যত্ প্রজন্ম, প্রবীণদের সফল পদচ্ছাপ ধরেই এগিয়ে যাবে নবীনদের উদ্যোগী ধ্যান-ধারণা। মূল উদ্দেশ্য হলো—বর্তমান তরুণ প্রজন্মের কাছে একটি সুন্দর আদর্শ তুলে ধরা, যা অনুসরণ করে তারা এগিয়ে যেতে পারে। ২০১৬ সালে পঞ্চমবারের মতো করা হয়েছে এই তালিকা। প্রতিবারের মতো এবারও দুনিয়াজুড়ে ছড়িয়ে থাকা সফল বাংলাদেশিদেরকেই বেছে নেওয়া হয়েছে তালিকার জন্য। নিচে এমনই কিছু ব্যতিক্রমী মানুষ যারা সাফল্যের পিছনে ছোটেননি, বরং সাফল্য যাদের পিছনে ছুটেছে; তাদের সংক্ষিপ্ত পরিচয় তুলে ধরা হলো।

আন্তর্জাতিক হাঁটা দিবসে পায়ে হেঁটে কার্বনমুক্ত বিশ্ব গড়ি

আন্তর্জাতিক হাঁটা দিবসে পায়ে হেঁটে কার্বনমুক্ত বিশ্ব গড়ি

গত ১৯ ফেব্রুয়ারি ছিল আন্তর্জাতিক হাঁটা দিবস। পায়ে হেঁটে আন্তর্জাতিক সীমান্ত অতিক্রমকারী প্রথম এশিয়ান নারী ও জাতীয় হাঁটা দিবসের প্রতিষ্ঠাতা জান্নাতুল মাওয়া রুমার নেতৃত্বে ব্যতিক্রমধর্মী এই দিবসটি পালিত হলো বাংলাদেশে। আয়োজনে সহযোগিতা করেছে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা পরিবার। ‘আসুন আমরা পায়ে হেঁটে দেশ দেখি, বিশ্ব দেখি, কার্বনমুক্ত বিশ্ব গড়ি’ স্লোগানে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গা, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ২৭নং ওয়ার্ডের কমিশনার ও বিশিষ্ট সমাজসেবক ফরিদুর রহমান খান ইরান, আন্তর্জাতিক শ্রমিক ফেডারেশনের সেক্রেটারি শামীমা সুলতানা, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ঢাকা মহানগরী সহকারী কমান্ডার শাহ আলম বিল্লাহ বকুল, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা বহুমুখী সমবায় সমিতির সভাপতি কিয়ামউদ্দীন মোল্লাহ, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা সামসুদ্দিন ছিদ্দিকি, লিবিও কির্তনীয়া, তারা মিয়া আব্দুল লতিফ, মো. মাকসুদসহ আরও অনেক বীর মুক্তিযোদ্ধা।